আবদুর রহিম (পণ্ডিত)

From ইসলামকোষ
Jump to navigation Jump to search
মাওলানা
আবদুর রহিম
জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের নেতা
কাজের মেয়াদ
১৯৫৬ – ১৯৬০
উত্তরসূরী গোলাম আজম
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (১৯১৮-০৩-০২)২ মার্চ ১৯১৮
পিরোজপুর জেলা, বাংলাদেশ
মৃত্যু ১ অক্টোবর ১৯৮৭(১৯৮৭-১০-০১) (৬৯ বছর)
ঢাকা
রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামী
দাম্পত্য সঙ্গী খায়রুন্নেসা
সন্তান ১০
প্রাক্তন ছাত্র কলকাতা আলিয়া মাদ্রাসা
পেশা দাওয়া
জীবিকা লেখক, অনুবাদক, রাজনীতিবিদ
ধর্ম ইসলাম

মাওলানা আবদুর রহিম (২ মার্চ ১৯১৮ – ১ অক্টোবর ১৯৮৭) ছিলেন একজন বাংলাদেশি ইসলামি পন্ডিত ও খ্যাতনামা রাজনীতিবিদ। তিনি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর প্রথম নেতাদের অন্যতম।[১]

তিনি ইসলামি পন্ডিত সাইয়েদ আবুল আ'লা মওদুদীইউসূফ আল-কারযাভীর বই বাংলায় অনুবাদ করেন। এছাড়াও ইসলাম নিয়ে বাংলাউর্দুতে তার মৌলিক রচনা রয়েছে।

প্রাথমিক জীবন[edit | edit source]

আবদুর রহিম বাংলাদেশের পিরোজপুর জেলার শিয়ালকাঠি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা হাজি খবিরউদ্দিন ও মা আকলিমুন্নেসা। পরিবারের ১২ সন্তানের মধ্যে তিনি চতুর্থ। তার ভাইদের মধ্যে পরিচিতজন হিসেবে আছেন তার ভাই এ টি এম আবদুল ওয়াহিদ যিনি কলকাতা আলিয়া মাদ্রাসার স্নাতক ও খ্যাতনামা লেখক। তার আরো দুই ভাই এম এ করিম ও এম এ সাত্তারও খ্যাতনামা লেখক ছিলেন।[১] তিনি ইসলামিক ডেমোক্রেটিক লীগের (আইডিএল) ব্যানারে বিভিন্ন ইসলামি রাজনৈতিক দলকে একই কাতারে আনার প্রচেষ্টা চালান। এই দল ১৯৭৯ সালের ১৮ জুন অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে ২০টি আসন লাভ করে।[২]

শিক্ষাজীবন[edit | edit source]

নিজ গ্রামের বাড়ির পার্শ্ববর্তী মসজিদে চার বছর শিক্ষা সমাপ্ত করার পর ১৯৩৪ সালে তিনি শর্ষিনা আলিয়া মাদ্রাসায় ভর্তি হন। এখানে তিনি প্রায় পাঁচ বছর শিক্ষাগ্রহণ করেন। ১৯৩৮ সালে তিনি এখান থেকে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হন। এরপর তিনি কলকাতা আলিয়া মাদ্রাসায় ভর্তি হন (বর্তমান আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়)। এখান থেকে তিনি ১৯৪০ সালে ‘ফাজিল’ ও ১৯৪২ সালে ‘কামিল’ পাশ করেন।[১]

জামায়াতে ইসলামীতে অংশগ্রহণ[edit | edit source]

আলিয়া মাদ্রাসার ছাত্র থাকাবস্থায় মাওলানা আবদুর রহিম সাইয়েদ আবুল আ'লা মওদুদী কর্তৃক সম্পাদিত ম্যাগাজিন ‘তরজমানুল কুরআন’ নিয়মিত গ্রহণ করতেন। এই ম্যাগাজিন ও সাইয়েদ মওদুদির অন্যান্য রচনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে তিনি ১৯৪৬ সালে জামায়াতে ইসলামীর নিখিল ভারত সম্মেলনে অংশ নেন। এখানে তিনি জামায়াতের অন্যান্য নেতাদের সাথে পরিচিত হন। ১৯৪৬-৪৭ সালের পর্বে তিনি সংগঠনে যোগ দেন।[১]

মাওলানা আবদুর রহিম বাংলাদেশে জামায়াতে ইসলামীর প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করা চারজন ব্যক্তির অন্যতম। অন্যান্যরা হলেন মাওলানা রফি আহমেদ ইন্দরি, খোরশেদ আহমেদ ভাট ও মাওলানা কারি জলিল আশরাফি নদভি। ১৯৫৫ সালে মাওলানা আবদুর রহিম পূর্ব পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামীর আমির নির্বাচিত হন।[৩] ১৯৭০ সালে পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির (ভাইস চেয়ারম্যান বা ভাইস প্রেসিডেন্ট) হন। এসময় গোলাম আজম পূর্ব পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামীর নতুন আমির নির্বাচিত হন। তিনি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর প্রথম নির্বাচিত নেতা। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তিনি পাকিস্তানে অবস্থান করছিলেন।[১] ১৯৭৪ সালে তিনি দেশে ফিরে আসেন।[৪] ১৯৭১-১৯৭৮ সালের সময়সীমায় জামায়াত বাংলাদেশের রাজনীতিতে নিষিদ্ধ ছিল।[৪]

গ্রন্থ[edit | edit source]

মাওলানা আবদুর রহিম বেশ কিছু বই লিখেছেন। তন্মধ্যে কিছু বই হল,

  1. আল কুরআনের আলোকে উন্নত জীবনের আদর্শ (১৯৮০)
  2. আজকের চিন্তাধারা (১৯৮০)
  3. পাশ্চাত্য সভ্যতার দার্শনিক ভিত্তি (১৯৮৪)
  4. আল কুরআনের নবুয়ত ও রিসালাত (১৯৮৪)
  5. আল কুরআনের আলোকে শিরক ও তাওহিদ (১৯৮৩)
  6. আল কুরআনের রাষ্ট্র ও সরকার (১৯৮৮)
  7. ইসলামের জাকাত বিধান (১৯৮২-১৯৮৬) – ইউসূফ আল-কারযাভীর বইয়ের অনুবাদ
  8. বিংশ শতাব্দীর জাহিলিয়াত (১৯৮২-১৯৮৬) – সাইয়েদ কুতুবের বইয়ের অনুবাদ
  9. তাফহিমুল কুরআন, ১৯ খন্ড – সাইয়েদ আবুল আ'লা মওদুদীর বইয়ের অনুবাদ

মৃত্যু[edit | edit source]

১৯৮৭ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। ৩০ সেপ্টেম্বর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১ অক্টোবর দুপুর ১২টার দিকে তিনি ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন।

তথ্যসূত্র[edit | edit source]

  1. "Moulana Muhammad Abdur Rahim"http://marrf.com। Moulana Abdur Rahim Research Foundation। সংগ্রহের তারিখ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪  |website= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)
  2. "Politics of Bangladesh: Wikipedia"https://en.wikipedia.org। Wikipedia। সংগ্রহের তারিখ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪  |website= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)
  3. "History of Bangladesh Jamaat-e-Islami"http://jamaatsupporters.com। সংগ্রহের তারিখ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪  |website= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)
  4. Political Islam and the Elections in Bangladesh (PDF)। 34 South Molton Street, London, W1K 5RG: Institute of Commonwealth Studies। ২০১৩। পৃষ্ঠা 41। সংগ্রহের তারিখ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪