সৈয়দ দেলাওয়ার হোসাইন

From ইসলামকোষ
Jump to navigation Jump to search
বাগ-এ হোসাইনিতে সৈয়দ দেলাওয়ার হোসাইনের সমাধি

সৈয়দ দেলোয়ার হোসাইন (১৮৯৩-১৯৮২) ছিলেন মাইজভান্ডারী তরীকার[১][২] একজন অন্যতম সুফি সাধক[৩]। তিনি দেলা ময়না, অছি-এ গাউছুল আজম[৩][৪] ও হযরত মৌলানা সৈয়দ দেলোয়ার হোসাইন মাইজভান্ডারী[৫] নামে বিশেষ ভাবে পরিচিত।

জন্ম ও শিক্ষা[edit | edit source]

সৈয়দ দেলাওয়ার হোসাইন রচিত ‘এলাকার রেনেসাঁর যুগের একটি দিক’ গ্রন্থের প্রচ্ছদ। প্রকাশ: ১৯৭৪, রাহে ভান্ডার আর্কাইভের একটি দূর্লভ সংগ্রহ।

তিনি ফাল্গুন ১৩, ১২৯৯ বঙ্গাব্দ মোতাবেক ফেব্রুয়ারি ২৭, ১৮৯৩ খৃষ্টাব্দে চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি থানার অর্ন্তগত মাইজভান্ডারে জন্ম গ্রহণ করেন। পাঁচ বৎসর বয়সে স্বীয় দাদার নিকট[৪] তার প্রাথমিক শিক্ষার হাতে খড়ি হয়।

পারিবারিক জীবন[edit | edit source]

ছয় বৎসর বয়সে তার পিতা সৈয়দ ফয়জুল হক পরলোকগত হন অতপর দাদা, মাইজভান্ডারী তরীকার প্রতিষ্ঠাতা[৩] আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারীকে হারান ১৩ বছরকার বয়সে[৫]। দাদার ৪৩ দিন পর তার বড় একমাত্র ভাই সৈয়দ মীর হাসান মৃত্যু বরণ করেন। তার স্ত্রী সৈয়দা সাজেদা খাতুন ছিলেন বাবা ভান্ডারীর[৪] কন্যা। জন্ম সূত্রে তিনি নবী মোহাম্মদ (সাঃ)’র বংশধর। তার বংশগত শাজরা/ধারা সৈয়দ আব্দুল কাদের জিলানী ও নবী নন্দিনী ফাতেমা জাহারা হয়ে নবী পর্যন্ত পৌছে। তার দাদার লক্ষ লক্ষ[৬] অনুসারীগণের মাঝে তিনি দাদার দেয়া উপনাম দেলা ময়না হিসাবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেন।[৪][৫]

ছুফি মতাদর্শ[edit | edit source]

তিনি মাইজভান্ডারী তরীকার একজন প্রখ্যাত ছুফি সাধক ও লেখক[৭] ছিলেন। সৈয়দ দেলওয়ার হোসাইন অত্র তরীকার প্রতিষ্ঠাতা আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারীর নির্দেশক্রমে তার বড় ভাই, বোন ও মা সহ একত্রে[৮] তরীকা প্রতিষ্ঠাতার খলিফা[৯] ছোট মৌলানা সৈয়দ আমিনুল হক ওয়াছেলের[১০] নিকট কিশোর বয়সে বাইয়্যাত/শিষ্যত্ব গ্রহণ করেছেন বলে নিজে তার বেলায়তে মোতলাকা নামক গ্রন্থে ব্যক্ত করেন। প্রসংগত, অপর দুই প্রখ্যাত ছুফি সাধক আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী এবং গোলামুর রহমান মাইজভান্ডারীর (প্রকাশ বাবা ভান্ডারী) নিকট হতেও তিনি ছুফি দর্শনের জ্ঞান[৪][১১] লাভ করেন।

প্রকাশনা সমূহ[edit | edit source]

তার লেখনি সমূহের মাধ্যমে মাইজভান্ডারী ছুফি মতাদর্শ, ইতিহাস ও রীতিনীতি সর্ব প্রথম বাংলা ভাষায় একটি প্রাতিষ্ঠানিক পরিশীলিত রুপরেখা [৭][১২] লাভ করে। ফলত পরবর্তীকালে বিশ্বের নানা প্রান্তে এ তরীকা সংক্রান্ত গবেষণায় তার লেখা সমূহ মৌলিক উপাদান হিসাবে গুরুত্ব পায় কেননা, তদ্বপূর্ব অপরাপর লেখকগণের বেশির ভাগ লেখা সমূহ ছিল আরবী ও উর্দূ ভাষায়। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে মাইজভান্ডারী তরীকার স্বরুপ বিশ্লেষনাত্মক কতিপয় গবেষণা গ্রন্থ ইতোমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে। তন্মধ্যে যথাক্রমে বর্তমানে সমগ্র বিশ্বে অত্র তরীকার ১ কোটি বা ১০ মিলিয়নেরও বেশি প্রত্যক্ষ অনুসারী রয়েছে বলে উল্লেখ করা অষ্ট্রেলিয়ার মাইগ্রেশন রিভিউ ট্রাইবিউন্যাল (এমআরটি) এবং রিফিউজি রিভিউ ট্রাইবিউন্যালের (আরআরটি) গবেষণা প্রবন্ধ বাংলাদেশ- মাইজভান্ডারী সম্প্রদায়- ছুফিবাদ- ধর্মীয় মৌলবাদ[১৩], আমেরিকার ওকলাহোমা ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক পিটার জে. র্ব্যাটচ্চি রচিত এ্যা ছুফি মুভমেন্ট ইন বাংলাদেশ: মাইজভান্ডারী তরীকা এন্ড ইটস্ ফলোয়ার্স[১৪], জার্মানীর হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হেনস্ হার্ডার বিরচিত ছুফিজম এন্ড সেইন্ট ভ্যানারেশান ইন কন্টেম্পরারী বাংলাদেশ অব চিটাগং (রাউটল্যাজ এ্যাডভান্স ইন সাউথ এশিয়ান ষ্ট্যাডিজ্)[১৫] এবং বাংলা একাডেমীর প্রাক্তন ও ফিনল্যান্ডের ফিনিশ এ্যাকাডেমীর বর্তমান গবেষক ড. সেলিম জাহাঙ্গীরের পি এইচ ডি গ্রন্থ মাইজভান্ডারী সনদর্শন[১৬] বিশেষ ভাবে প্রনিধানযোগ্য।

তার লিখিত বিখ্যাত দশটি[৪][৭] বইয়ের মধ্যে মাইজভান্ডারী তরীকার ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে বিরচিত বেলায়তে মোত্‌লাকা গ্রন্থটির ইংরেজী অনুবাদ সম্পাদিত হয়েছে। এছাড়া তার অপরাপর নয়টি গ্রন্থ যথাক্রমে:

  1. গাউছুল আজম মাইজভান্ডারীর জীবনী ও কেরামত
  2. গঠনতন্ত্র
  3. প্রতিবাদ লিপি
  4. এলাকার রেনেসাঁ যুগের একটি দিক
  5. বিশ্ব মানবতায় বেলায়তের স্বরূপ
  6. মানব সভ্যতা
  7. মিলাদে নববী ও তাওয়াল্লোদে গাউছিয়া
  8. মুসলিম আচার ধর্ম
  9. মূল তত্ত্ব বা তজকীয়ায়ে মোখতাছার- ১ম খন্ড

উত্তরাধিকার[edit | edit source]

তিনি ১৯৪৯ সালে আঞ্জুমানে মোত্তাবেয়ীনে গাউছে মাইজভান্ডারী নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন যা এখনো দেশ ব্যাপী কার্যক্রম[৬][১৭][১৮] পরিচালনা করছে। তিনি পারিবারিক উত্তরাধিকারী হিসাবে পাঁচজন ছেলে ও ছয়জন মেয়ে[৪] রেখে যান। তন্মধ্যে পরবর্তীকালে তার বড় ছেলে সৈয়দ জিয়াউল হক একজন বিখ্যাত ছুফি সাধক হিসাবে মাইজভান্ডারী তরীকায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

মৃত্যু[edit | edit source]

সৈয়দ দেলোয়ার হোসাইন নব্বই বছর বয়সকালে মাঘ ২, ১৩৮৮ বঙ্গাব্দ, জানুয়ারী ১৬, ১৯৮২ খৃষ্টাব্দে ওফাত বরণ করেন। মাইজভান্ডারে বাগ-এ হোসাইনি[৪][১৯][২০] নামের এক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

আরও দেখুন[edit | edit source]

তথ্যসূত্র[edit | edit source]

  1. লেখক: ড. এ্যালান গডলাস, জর্জিয়া ইউনিভার্সিটি (Dr. Alan Godlas, University of Georgia। "ছুফিজম- ছুফিজ্- ছুফি অর্ডারস- ছুফিজমস ম্যানি পাথ্ (Sufism -- Sufis -- Sufi Orders/ Sufism's Many Paths)," 
  2. দৈনিক আজাদী, প্রকাশকাল: জানুয়ারী ২১, ২০১৪, শেষ পৃষ্ঠা তৃতীয় কলাম। "শিরোনাম: আজ গাউছুল আজম মাইজভান্ডারীর ওরছ" 
  3. দৈনিক পূ্র্বকোণ (রবিবার, ৩০ মার্চ ২০১৪)। "আলহাজ্ব শাহসুফি মুফতি আবদুল মালেক শাহ্ রহ (অছিয়ে গাউছুল আজম শাহসুফি সৈয়দ দেলোয়ার হোসাইন আল মাইজভান্ডারী হতে মহান তরীক্বতের শিক্ষা গ্রহন করেন)"  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  4. মাইজভান্ডার শরীফ এ্যান এ্যামব্লাম অব হিউম্যান রিগেইলম্যান্ট (Maizbhander Sharif an emblem of human regalement)। "হযরত মৌলানা শাহ ছুফি সৈয়দ দেলওয়ার হোসাইন মাইজভান্ডারী (রঃ)" 
  5. প্রকাশক: দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠ (২৪ মার্চ ২০১৪)। "আজ আলহাজ্ব শাহ্ সুফী ডাঃ সৈয়দ দিদারুল হক মাইজভান্ডারী চাঁদপুর আসছেন – (আহমদ উল্যাহ্ (কঃ) এর গদির একমাত্র সাজ্জাদানশীন অছি-এ-গাউছুল আযম মাওলানা শাহসুফী সৈয়দ দেলোয়ার হোসাইন মাইজ ভান্ডারী),"  Cite error: Invalid <ref> tag; name "DelaMoina 3" defined multiple times with different content Cite error: Invalid <ref> tag; name "DelaMoina 3" defined multiple times with different content
  6. "রিফিউজি রিভিউ ট্রাইবিউনাল, অষ্ট্রেলিয়া, পৃঃ ১ (বিশ্বজুড়ে দশ মিলিয়নের অধিক প্রত্যক্ষ অনুসারী রয়েছে)। এ গবেষণা প্রবন্ধটি প্রকাশ করেছে: দ্যা রিসার্চ এন্ড ইনফরম্যাশান সার্ভিস সেকশান অব দ্যা রিফিউজি রিভিউ ট্রাইবিউনাল (আরআরটি)/Refugee Review Tribunal, AUSTRALIA, Page: 01 ('has over 10 million active devotees and supporters across the world'), Prepared by: the Research & Information Services Section of the Refugee Review Tribunal (RRT)" (PDF)  Cite error: Invalid <ref> tag; name "AUSTRALIA" defined multiple times with different content
  7. Dr. M. Abdul Mannan Chowdhury, Professor of Economics, Chittagong University and President, Maizbhandari Academy। "The Role of Maizbhandari Philosophy" 
  8. Theoretical Bengali book on Maizbhanderi philosophy: Alakar Renesaar Juuger Akti Dik বাংলা: এলাকার রেনেসাঁর যুগের একটি দিক {Sayed Deloar Hosain the grandson of Ahmed Ullah Maizbhanderi narrated that, "once at that time he, (Choto Moulana) came to the inner room of our house and said, 'the commandment of Hajrath (Ahmed Ullah Maizbhanderi) is to show and teach (all of) you the indeed fact of Sufism according to Bay'ah/Bayath’, (Bengali: হযরতের নির্দেশ, তোমাদেরকে বাইয়্যাতের মাধ্যমে তা’লিম- ত্বল্কীন দিই). In that case, my elder brother Sayed Mir Hassan, I (Sayed Delwar Hossain), my sister Sayeda Sofura Khatun and our mother together became initiated/Bay'ah"}, Author: Syed Delwar Hossain Maizbhanderi, Published on: 1974 AD
  9. "ছুফিজমের পরিভাষায়, কোন নির্দিষ্ট তরীকায় একজন ছুফি সাধকের আধ্যাত্মিক প্রতিনিধিকে খলিফা বলা হয় (In Sufism, a Khalifah is a spiritual successor of a saint, in the Sufi order Khalifa), ফ্রি অনলাইন শব্দকোষ (Free Online Dictionary)" 
  10. Maizbhander Sharif an emblem of human regalement। "Hazrat Moulana Shah Sufi Syed Delawor Hossain Maizbhadnari {Hazrat Moulana Syed Aminul Huq Wasel Miazbhandari is his Pir-e-Bait (guide who showed the path of divine love) and Hazrat Gausul Azam Maizbhandari and Hazrat Baba Bhandari are his Pir-e-Tafaiuz (guide who gave divine blessings). Hazrat Baba Bhandari is the father-in-law of Hazrat Delawor Hossain Maizbhandari}" 
  11. Daily Chandpur Kantha (মার্চ ২৪, ২০১৪)। "Alhajj Shah Sufi Dr. Syed Didarul Haq Maizbhanderi arriving at Chandpur today – (There inscribe: Syed Delaor Husaien Maizbhanderi, The Sajjadanashin OSCIE-e Gauslul Azam Ahmed Ullah Maizbhanderi/ গাউসুল আজম মাওলানা শাহ্ছুফী আহমদ উল্যাহ্ (কঃ) এর গদির একমাত্র সাজ্জাদানশীন অছি-এ-গাউছুল আযম মাওলানা শাহসুফী সৈয়দ দেলোয়ার হোসাইন মাইজ ভান্ডারী)." 
  12. NATIONAL UNIVERSITY, Four B.A. Honours Course, Effective from the Session: 2009-2010। "Syllabus, Department of Islamic Studies"। 
  13. "অষ্ট্রেলিয়ার সরকারি ভিসা সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণে সরকারের অঙ্গ সংগঠন কর্তৃক প্রকাশিত গবেষণা প্রবন্ধ: বাংলাদেশ- মাইজভান্ডারী সম্প্রদায়- ছুফিবাদ- ধর্মীয় মৌলবাদ (Article: Bangladesh – Maijbhandari sect – Sufism – Religious extremism, Page: 01, Published by: RRT Research Response- Australia)" (PDF) 
  14. "গবেষণা গ্রন্থ: এ ছুফি মুভমেন্ট ইন বাংলাদেশ: মাইজভান্ডারী তরীকা এন্ড ইটস্ ফলোয়ার্স (A Sufi Movement in Bangladesh: Maizbhanderi tariqa and its followers), লেখক: পিটার জে. র্ব্যাটচ্চি (Peter J. Bertocci), ওকলাহোমা ইউনিভার্সিটি, মিশিগান, ইউএসএ" 
  15. "ইংরেজী গবেষণা গ্রন্থ: ছুফিজম এন্ড সেইন্ট ভ্যানারেশান ইন কন্টেম্পরারী বাংলাদেশ অব চিটাগং রাউটল্যাজ এ্যাডভান্স ইন সাউথ এশিয়ান ষ্ট্যাডিজ্/ Sufism and Saint Veneration in Contemporary Bangladesh: The Maijbhandaris of Chittagong (Routledge Advances in South Asian Studies), লেখক: হেনস্ হার্ডার, হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়, জার্মানী (Hans Harder, Head of Department of Modern South Asian Languages and Literatures, Heidelberg University)" 
  16. গবেষণা গ্রন্থ: সনদর্শন, লেখক: ড. সেলিম জাহাঙ্গীর (পিএচডি), প্রাক্তন গবেষক, বাংলা একাডেমী এবং বর্তমান গবেষক, ফিনিশ এ্যাকাডিমী, ফিনল্যান্ড, প্রকাশনায়: বাংলা একাডেমী, প্রকাশকাল: জুন, ১৯৯৯ খৃঃ
  17. Islamic Movements। "SAARC HUMAN RIGHTS REPORT 2006 (Syed Najibul Bashar Maizbhandari resigned from the party, protesting the government's 'failure to act' against Jamaat-e-Islami)" (PDF) 
  18. "শিরোনাম: আঞ্জুমানে গাউছে মাইজভান্ডারী কাটিরহাট শাখার সভা অনুষ্ঠিত, গণমাধ্যম: দৈনিক আজাদী, প্রকাশকাল: জানুয়ারী 12, 2013" 
  19. Ziyarat Explained / Pilgrimage sites। "Sites by country/Bangladesh" 
  20. Islamic Movements। "Mazar Sharif of Hazrat Syed Delwar Hossain Maizbhandari"